কক্সবাজার, বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৩৩ লাখ

করোনা সংক্রমণের প্রভাব ক্রমশ বেড়েই চলছে। একদিকে যেমন বাড়ছে সংক্রমণের সংখ্যা, তেমনই বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। বিশ্বের প্রতিটি দেশই হিমশিম খাচ্ছে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে সারা বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৯ হাজার ৭২২ জন। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৪৩ হাজারের বেশি।

এই নিয়ে এখন পর্যন্ত সারা বিশ্বে মোট করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ৮৯ লাখেরও বেশি মানুষ। মারা গেছেন ৩৩ লাখ ৬ হাজারের বেশি।

সোমবার (১০ মে) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন মোট ১৫ কোটি ৮৯ লাখ ৫৬ হাজার ১৯২ জন। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩৩ লাখ ৬ হাজার ৩১৩ জনের।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ৯৫ হাজার ৮১২ জনের প্রাণ নিয়েছে এই মহামারি। এছাড়া সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৩৪ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮১ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৬৪ লাখ ৫ হাজার ৮৭১ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ভারত। এশিয়ার মধ্যেও করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশটি। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ২৬ লাখ ৬২ হাজার ৪১০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৪৬ হাজার ১৪৬ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৮৬ লাখ ৬৫ হাজার ২৬৬ জন।

তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। ল্যাটিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ৫১ লাখ ৮৪ হাজার ৭৯০ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪ লাখ ২২ হাজার ৪১৮ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৩৭ লাখ ১৪ হাজার ১৩৫ জন।

তালিকার পরবর্তী অবস্থানে থাকা দেশগুলো হলো- ফ্রান্স, তুরস্ক, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ইতালি, স্পেন এবং জার্মানি।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখনও ৩৩তম। দেশে এখন পর্যন্ত ৭ লাখ ৭৩ হাজার ৫১৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১১ হাজার ৯৩৪ জন। আর করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭ লাখ ১০ হাজার ১৬২ জন৷

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি। বিশ্ব এখন করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা করছে।

পাঠকের মতামত: