কক্সবাজার, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪

মিরসরাইয়ে ভাসুরকে কুপিয়ে হত্যা, ১৮ বছর পর আসামি গ্রেপ্তার

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ভাসুরকে কুপিয়ে হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি রহিমা বেগমকে (৬০) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

গ্রেপ্তার রহিমা বেগম জোরারগঞ্জ থানার মরগাং এলাকার নূর মোহাম্মদের স্ত্রী।

সোমবার (১৯ জুন) কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানার লক্ষীপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, নিহত আবুল কালাম ওরফে সাহেব মিয়ার (৫২) সাথে তার ভাই নূর মোহাম্মদের জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। ২০০৫ সালের ৫ নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টায় নূর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী রহিমা কালামকে কৌশলে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পাশের একটি পুকুরে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম দুই জনকে আসামি করে মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে মামলার বিচার শুরু হয়। রহিমা বেগম দীর্ঘদিন পলাতক থাকায় আদালত পুলিশের তদন্ত এবং সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রহিমা বেগম এবং তার স্বামী নূর মোহাম্মদকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নূরুল আবছার বলেন, এ ঘটনায় র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। একপর্যায়ে র‌্যাব জানতে পারে আসামি রহিমা বেগম গ্রেপ্তার এড়াতে ছদ্মনামে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানার লক্ষীপুরে এলাকায় অবস্থান করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সোমবার (১৯ জুন) অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার রহিমা জানায়, গ্রেপ্তার এড়াতে রহিমা বেগম ১৮ বছর ধরে ছদ্মনামে কিশোরগঞ্জে বসবাস করে। সেখানে তিনি মাদকের ব্যবসাও করেন। গ্রেপ্তার আসামিকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।

পাঠকের মতামত: