কক্সবাজার, বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

মিয়ানমারে সু চির পার্টি অফিসগুলোতে সেনা অভিযান, নথিপত্র জব্দ

মিয়ানমারে গত সোমবার সেনা অভ্যুত্থানের পর দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে অং সান সু চির ন্যাশনাল লিগ ফল ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি) পার্টির দপ্তরগুলোতে অভিযান চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে দলটি। ওই অভিযানগুলোর সময় জোর করে প্রবেশের ঘটনা ঘটেছে এবং নথি, কম্পিউটার ও ল্যাপটপ নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে বুধবার ফেইসবুকে দেওয়া এক বিবৃতিতে অভিযোগ করেছে এনএলডি। গতকাল মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) থেকে এসব অভিযান শুরু করা হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

গত নভেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে সু চির দল এনএলডি নিরঙ্কুশ জয় পেলেও জালিয়াতির অভিযোগ তুলে সামরিক বাহিনী তা প্রত্যাখ্যান করে। এ নিয়ে মিয়ানমারের বেসামরিক এনএলডি সরকার ও প্রভাবশালী সামরিক বাহিনীর মধ্যে কয়েকদিন ধরে দ্বন্দ্ব ও উত্তেজনার পর অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সেনাবাহিনী দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেয়।
পহেলা ফেব্রুয়ারি সোমবার ভোররাতে রাজধানী নেপিডোতে অভিযান চালিয়ে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর সু চি, প্রেসিডেন্ট উয়িন মিন্টসহ এনএলডির শীর্ষ নেতাদের আটক করে সেনাবাহিনী।

এর কয়েক ঘণ্টা পর সামরিক বাহিনীর নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশনে এক বছরের জন্য দেশে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, নির্বাচনে ‘জালিয়াতির’ঘটনায় সরকারের জ্যেষ্ঠ নেতাদের আটক করা হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করার পর সেনাবাহিনীর ক্ষমতা গ্রহণ ‘অনিবার্য হয়ে উঠেছিল’ বলে মন্তব্য করেছেন অভ্যুত্থানের পর দেশটির কর্তৃত্ব গ্রহণ করা সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিং অং হ্লাইং।

এদিকে মঙ্গলবার এক ফেইসবুকে পোস্টে অং সান সু চি, ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট উয়িন মিন্টসহ গ্রেপ্তার নেতাদের মুক্তি দেওয়ার জন্য সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল এনএলডি।

পাঠকের মতামত: