কক্সবাজার, শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

রক্ত ঝরিয়েছেন, তবু মাঠ ছাড়েন নি মেসি

দেশের জন্য ফুটবল মাঠেও রক্ত ঝরানো যায়। লিওনেল মেসি তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রাখলেন কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে। কলম্বিয়া ডিফেন্ডারদের একের পর এক ট্যাকলে বিধ্বস্ত হলেও, মাঠ ছাড়েন নি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

এর আগেও অবশ্য এমন নজির দেখিয়েছেন অনেক ফুটবলার। বিভিন্ন সময়ে রক্তাক্ত হয়েছেন মেসিও। তবে ভাঙা পা নিয়েই পুরো ম্যাচে লড়ে দেশের জন্য নিজের ত্যাগ আরো একবার তুলে ধরলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার।

এক বাম পায়ের জাদুতেই ফুটবল দুনিয়াকে মোহাবিষ্ট করে রেখেছেন লিও। প্রতিপক্ষ কলম্বিয়ার ডিফেন্ডার ফ্রাঙ্ক ফ্যাব্রা তার সেই পা’টাকেই টার্গেট করেছিলেন। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার নিকৃষ্ট পথটাই বেছে নিয়েছিলেন তিনি। তবে তার ট্যাকলে মাঠে লুটিয়ে পড়লেও, কিছুক্ষণ পরই উঠে দাঁড়ান মেসি। খেলে যান একেবারে শেষপর্যন্ত।

ক্যামেরা বারবার ঘুরে যাচ্ছিলো মেসির পায়ের দিকে। রক্ত গড়িয়ে ভিজে যাচ্ছিলো তার মোজা। যদিও কোনকিছুই দমিয়ে রাখতে পারে নি তাকে।

এমনকি ম্যাচ পেনাল্টি শ্যুটআউটে গড়ানোর পর সবার আগে শটটা নিতে যান ৬বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী তারকা। সেই বাঁ পায়েই টাইব্রেকারে দলকে এনে দেন লিড।

তার এমন কীর্তির পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন মেসিময়। নানাজন নানা মন্তব্য করছেন। মজা করে একজন লিখেছেন, সবকিছুর পর মেসিও একজন মানুষ, আবারো সেটি প্রমাণিত হলো।

টুইটারে আরেকজন ভক্ত লিখেছেন, এভাবে পুরো ম্যাচ খেলে যাওয়া! এরপরও যদি দেশের প্রতি তার ভালোবাসা প্রকাশ না পায়, তাহলে কিভাবে প্রকাশ পায় আমি জানি না।

পুরো ম্যাচে মেসি দলকে নেতৃত্ব দেন একেবারে সামনে থেকে। নিজের শটটা নিয়েই থেমে যান নি। গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজকে উৎসাহ দিয়ে এসেছেন। পেনাল্টি যারা নিয়েছেন সবাইকে সাহস দিয়েছেন। এমনকি আগলে রেখেছেন পেনাল্টি মিস করা দে পলকে।

শেষপর্যন্ত হাসিমুখ নিয়েই মাঠ ছেড়েছেন মেসি। আগামী রোববার নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফি জয়ের লক্ষ্যে আরো একবার প্রাণপন মরিয়া হয়ে লড়বেন দ্য লিটল ম্যাজিশিয়ান।

পাঠকের মতামত: