কক্সবাজার, রোববার, ৩ মার্চ ২০২৪

শিমের ডাবল সেঞ্চুরি, অন্য সবজিতেও অস্বস্তি

শরৎ থেকে শীত আসতে এখনও হেমন্ত পারের অপেক্ষা। কিন্তু, বাজারে এখনই দেখা মিলছে শীতের কিছু সবজি। আকাশচুম্বী দামের ওই সবজিগুলো রয়েছে সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমার বাইরে। শীতের সবজিগুলোর মধ্যে শিম বাজারে হাঁকিয়েছে ডাবল সেঞ্চুরি। আর সেঞ্চুরি পার করেছে চায়না গাজর। অন্যগুলোর দাম রয়েছে শ’য়ের নিচে

সোম ও মঙ্গলবার রাজধানীর কাঁঠালবাগান বাজার ও হাতিরপুল বাজার ঘুরে শীতের কয়েকটি সবজির দেখা মিলেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, ডালায় ডালায় সাজানো রয়েছে শিম, মুলা, গাজর, ফুলকপি ও বাঁধাকপি। সঙ্গে রয়েছে মৌসুমী সব সবজি। কিন্তু, ক্রেতাদের আগ্রহ থাকলেও খুব একটা কিনতে দেখা যায়নি। এছাড়া অন্য সবজির বাজারও ছিল চড়া। তবে সেগুলোর দামও কেজিপ্রতি ৫০ টাকার নিচে না। ফলে যেকোনো সবজি কিনতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদের।

শীতের সবজিগুলোর মধ্যে কেজি প্রতি শিম ২০০ টাকা, চায়না গাজর ১৪০ টাকা, মুলা ৬০-৭০ টাকা এবং ফুলকপি ও বাঁধাকপি ৬০ টাকা পিস হিসেব বিক্রি হতে দেখা গেছে। তবে কাঁঠালবাগান বাজারের তুলনায় হাতিরপুল বাজারে দাম ১০-২০ টাকা কম রয়েছে।

এছাড়া কেজি প্রতি সবুজ বেগুন (গোল) ১০০ টাকা, লম্বা বেগুন ৮০, বরবটি ১০০, করলা ৮০, পটল ৬০, ঢেঁড়স ৬০, পেঁপে ৪০, ঝিঙে ৬০, ধুন্দল ৬০, কচুর মুখি ৮০, কচুর লতি ৮০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এর বাইরে প্রতি পিস জালি কুমড়া (চাল কুমড়া) ৬০ টাকা, লাউ ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর কাঁচা কলা প্রতি হালি (৪টি) ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

 

শীতের সবজি সম্পর্কে বিক্রেতারা জানিয়েছেন, দামাদামি করে বেশিরভাগ মানুষ, কেনেন খুব কম ক্রেতা। তাই, এগুলো পরিমাণে অন্য সবজি থেকে কম আনা হয়। আর অন্য সবজিগুলো আড়ৎ থেকে যে দাম ধরে দেয়, তার বিপরীতে আমাদের পরিবহন খরচ, দোকান খরচ ও লাভ রেখে দাম নির্ধারণ করতে হয়ে। ফলে আড়তের সঙ্গে দামের পার্থক্য থাকে।

হাতিরপুল বাজারের দোকানি দেলোয়ার হোসেন ঢাকা পোস্টকে বলেন, শীতের এই সবজিগুলো এখন সারাবছরই পাওয়া যায়। তবে, স্বাদ মৌসুমী সবজির মতো না, একটু কম। অনেকেই এসব সবজি কিনে থাকে, তবে সবাই কিনে না। সিজন এলেই দাম কমে যাবে। তখন শিম ৫০-৬০ টাকা, মূলা ৩০ টাকা, গাজর ৪০ টাকা কেজি দরে এবং সাইজ ভেদে ফুলকপি ও বাঁধাকপিও পাওয়া যাবে ৩০-৫০ টাকা পিস দরে।

কাঁঠালবাগান বাজারের দোকানি সুমন জানিয়েছেন, তারা দোকানে শিম ২০০ টাকা কেজি, গাজর ১৫০ টাকা, মুলা ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন। তবে দাম বেশি হওয়ায় এসব সবজির চাহিদা কম।

বাজার করতে আসা ক্রেতা মাহবুবুর রহমান তুহিন ঢাকা পোস্টকে বলেন, বাজারে এমনিতেই সব সবজির দাম বেশি। সবজির বাজারে ৫০০ টাকা নিয়ে এলেও এক ব্যাগ ভর্তি সবজি বাসায় নিয়ে ফিরতে পারি না। তার মধ্যে আনসিজনাল সবজি কেনা তো প্রশ্নই আসে না। আরও কয়েকদিন আগে সবজির দোকানে ওসব সবজি দেখেছি, তখন দামও করেছি। কিন্তু কেনার সাধ্য হয়নি। শীতকাল এলেই এসব সবজি কিনব।

পাঠকের মতামত: