কক্সবাজার, শনিবার, ১৫ মে ২০২১

হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়া

করোনায় আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালে রেখে সিটিস্ক্যান সহ প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। রাতে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বাংলাদেশ জার্নালকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বিএনপি চেয়ারপারসন এভারকেয়ার হাসপাতালের ৭২০৪ নাম্বার কেবিনে ভর্তি আছেন।

খোকন বলেন, উনার করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে অন্যান্য পরীক্ষার জন্য উনাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ৯টায় ৩৫ মিনিটে গুলশানের বাসভবন থেকে খালেদা জিয়াকে নিয়ে যাওয়া হয়। ১০টা ৩ মিনিটে বেগম খালেদা জিয়া হাসপাতালে প্রবেশ করেন। খালেদার চিকিৎসক টিমের সদস্য অধ্যাপক ডা. এফএম সিদ্দিকী, অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন ও ডা. মোহাম্মদ আল মামুন তার সঙ্গে রয়েছেন। এছাড়া বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন উপস্থিত ছিলেন।

গত বছর ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে দুই মামলায় দণ্ডিত খালেদা জিয়াকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। এরপর আরও দুইদফা তার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়। কারাগার থেকে মুক্তির পর তিনি গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ফিরোজায় থেকে ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। একদিনের জন্যও তিনি বের হননি। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর দ্বিতীয়বারের মতো চিকিৎসার জন্য বাসার বাইরে বের হলেন তিনি।

গতকাল (সোমবার) রাত ১১টার দিকে খালেদা জিয়ার নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তার বাসায় যান অধ্যাপক ডা. এফ এম সিদ্দিকী এবং অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

২৪ এপ্রিল দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষা করা হলেও খালেদা জিয়ার করোনা পজিটিভ আসে, তবে তার দেহে ভাইরাসের কোনো লক্ষণ নেই জানিয়েছেন তার চিকিৎসকরা।

এর আগে ১৪ এপ্রিল খালেদা জিয়াকে সিটি স্ক্যানের জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল এবং পরে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে তার ফুসফুসে কিছু সংক্রমণ পাওয়া গেছে। খালেদা জিয়ার বাড়ির আট জন সদস্য ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ায় ১০ এপ্রিল তিনি কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়েছিলেন এবং তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

পাঠকের মতামত: