কক্সবাজার, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

৮৪ লাখ টাকার সেতুতে উঠতে হয় সিঁড়ি দিয়ে

বরগুনার তালতলী উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের নামেশিপাড়া গ্রামে ৮৪ লাখ টাকা ব্যয়ে খালের উপর ১৫ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি সেতু নির্মাণ হয়। সেতুটি নির্মাণ হলেও দুই প্রান্তে সংযোগ সড়ক নির্মিত হয়নি। যার কারণে এই সেতুতে সিঁড়ি দিয়ে উঠানামা করতে হয়। এতে শিক্ষার্থীসহ ভোগান্তিতে পড়েছেন দুই এলাকার হাজার হাজার মানুষ। ফলে সেতু দিয়ে চলাচল না করতে পারায় কোনো কাজেই আসছে না সেতুটি।

এলাকাবাসী বলেন, এক বছর হয়ে গেছে সেতুটি নির্মাণ করেছে অথচ সংযোগ সড়ক নাই। কাঠের সিঁড়ি দিয়ে যেন পাহাড় বেয়ে উঠতে হয়। এই সেতু নির্মাণের পর জনগণের দুর্ভোগ আরো চরমে ওঠে। খাল পার হওয়ার জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শিশু শিক্ষার্থীসহ শত শত মানুষ প্রতিদিন সিঁড়ি বেয়ে সেতু পারাপার করতে বাধ্য হয়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সেতুর দুই পাশে মাটির কাচা রাস্তা। এই সেতু দিয়েই প্রতিদিন স্থানীয় রাখাইন শিশু শিক্ষার্থীসহ ও শত শত মানুষ যাতায়াত করে। অথচ বাইসাইকেল নিয়েও ওঠা যায় না সেতুটিতে। আর সেতু থেকে উঠতে নামতে সিঁড়ির প্রয়োজন হয়। সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে এ সড়ক দুটি থেকে অনেকটাই উচ্চতায় সেইসঙ্গে করা হয়নি কোনো সংযোগ সড়ক।

nagad
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, ২০২১ – ২০২২ অর্থ বছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের নামেশিপাড়া সংলগ্ন নিদ্রা খালের উপর ১৫ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতু নির্মাণ হয়েছে। ৮৪ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে সেতুটির কাজ পেয়েছেন মেসার্স সারা প্রিন্স এন্টারপ্রাইজ। ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এক বছর সংযোগ সড়ক বিচ্ছিন্ন সেতুটি খালের উপর দাঁড়িয়ে আছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, এটা সেতু না যেন পাহাড় সিঁড়ি বেয়ে উঠতে হয়। অথচ ব্রিজের উপর থেকে সিঁড়ি দিয়ে নামতে গেলেই ভয় পাই। এই সেতু পারাপার হয়ে শিশু শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাওয়ার সময় কয়েকবার দুর্ঘটনা ঘটে। বৃষ্টির সময় সিঁড়িগুলো খুবই পিচ্ছিল অবস্থায় থাকে পা ফসকে পড়ে গেলেই প্রায় ২০ হাত নিচে পড়ে মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এভাবে খালের মধ্যে সেতু নির্মাণের পর সংযোগ সড়ক না করে এভাবে ফেলে রাখা আর সাধারণ মানুষের সাথে তামাশা করা এই কথা। সেতুর দুই প্রান্তের সংযোগ সড়ক দ্রুত নির্মাণের দাবি জানান তারা।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সারা প্রিন্স এন্টারপ্রাইজের লাইসেন্সে ব্যবহার করে কাজটি করান তালতলী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মারুফ রায়হান তপু তিনি বলেন, সেতুর কাজ শেষ হয়ে গেছে এখন সংযোগ সড়কের কাজ বাকি আছে। সেটাও কিছুদিনের মধ্যে হয়ে যাবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. মহিবুল ইসলাম বলেন সেতুর কাজ শেষ হয়েছে তবে সংযোগ সড়কের কাজ শেষ হয়নি একারণে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিল দেওয়া হয়নি সেতুর কাজ সম্পন্ন করলে বিল পাবেন।

পাঠকের মতামত: