কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২

জুনের মধ্যে ৯ লাখ কর্মী বিদেশ পাঠানোর লক্ষ্য

আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস আজ শনিবার। প্রতিবছরের মতো এবারও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে দিবসটি। বাংলাদেশে এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘শতবর্ষে জাতির পিতা, সুবর্ণে স্বাধীনতা/অভিবাসনে আনব মর্যাদা ও নৈতিকতা’।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এ ছাড়া বাণী দিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

দিবসটি উপলক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী গতকাল ‘ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’ আয়োজিত এক ছায়া সংসদে বক্তব্যে মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে বলেন, এবারে মালয়েশিয়ায় অভিবাসন ব্যয় যৌক্তিক পর্যায়ে থাকবে। কোনো অবস্থাতেই অতীতের মতো মালয়েশিয়া যেতে অভিবাসন ব্যয় চার-পাঁচ লাখ টাকা হতে দেওয়া হবে না। কভিডের কারণে যেসব শ্রমিক দেশে ফিরে এসেছিলেন তাঁরা এরই মধ্যে আবার বিদেশে যাচ্ছেন। আগামী বছরের জুনের মধ্যে ৯ লাখ শ্রমিককে বিদেশ পাঠাতে সরকার কাজ করছে।

বৈশ্বিক শ্রমবাজারে কভিড-১৯-এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ায় অনেক অভিবাসী এরই মধ্যে দেশে ফিরে এসেছেন। সরকার সচেষ্ট রয়েছে তাঁদের কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার উপায় অনুসন্ধানে। এই পরিস্থিতির মধ্যেই এবার পালিত হতে যাচ্ছে দিবসটি।

মন্ত্রী বলেন, প্রবাসে কর্মরত বাংলাদেশি নারী শ্রমিকরা বেশি নির্যাতিত হন। এ ধরনের নির্যাতন প্রতিরোধে তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বাংলাদেশের কূটনৈতিক মিশনগুলোকে নির্দেশনা দেওয়া আছে। সরকার নিরাপদ, নিয়মতান্ত্রিক ও মর্যাদাপূর্ণ অভিবাসন নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর। নিয়মবহির্ভূত ও অনৈতিক অভিবাসনে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মানবপাচার আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া গন্তব্য দেশের চাহিদার ভিত্তিতে বিদেশগামী কর্মীদের জন্য বুস্টার ডোজ দেয়া হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

এদিকে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) নিরাপদ অভিবাসন সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে আজ রাত ১১টায় ‘কনসার্ট ফর মাইগ্রেন্টস’-এর আয়োজন করা হয়েছে। এই কনসার্টে গান গাইবেন দেশের ৯ জন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী। কনসার্টের মূল লক্ষ্য অভিবাসী এবং তাদের পরিবার-পরিজনের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করা। তথ্য ও বিনোদনের মাধ্যমে নিরাপদ অভিবাসনের তথ্য প্রচার করা। এতে গাইবেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিত্, ফজলুর রহমান বাবু, ব্যান্ডদল শিরোনামহীন, লুইপা, আসিফ আকবর, কুদ্দুস বয়াতি, নন্দিতা, প্রীতম আহমেদ ও মাশা ইসলাম। তাঁরা কথা বলবেন নিরাপদ অভিবাসন নিয়ে। ভার্চুয়াল কনসার্টটি বিদেশে কর্মরত লাখ লাখ বাংলাদেশি অভিবাসীকে গান ও তথ্যের মাধ্যমে যুক্ত করবে। বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে অভিবাসীরা এই আয়োজন দেখতে পারবেন। আইওএম জানায়, সংখ্যার দিক দিয়ে বিশ্বের ষষ্ঠ সর্বোচ্চ স্থানে থাকা বাংলাদেশের অভিবাসীরা দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের অষ্টম সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স গ্রহণকারী দেশ। ১৯৭৬ সাথে থেকে অভিবাসীরা ২৪৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছন, যা এ দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন বড় ভূমিকা রেখেছে।

পাঠকের মতামত: