কক্সবাজার, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

পাপিয়া দম্পত্তির ২৭ বছর কারাদণ্ড

আওয়ামী যুব মহিলা লীগের সদ্য বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান চৌধুরী সুমনকে অস্ত্র মামলার রায়ে ২০ বছর এবং গুলি রাখার দায়ে অপর এক মামলায় ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। তবে দুই মামলার রায়ের কার্যক্রম একসঙ্গে চলবে।

সোমবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা মহানগরের ১ম স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল কেএম ইমরুল কায়েশের আদালত এ রায় প্রদান করেন। রায় শোনানের জন্য তাদের কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়েছেল। রায় শেষে তাদের সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল বার্তা২৪.কমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রায়ের তারিখ ঘোষণার আগে চার্জশিটের ১৪ সাক্ষীর মধ্যে ১২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে ট্রাইব্যুনাল।

গগ ২৩ আগস্ট পাপিয়া ও তাঁর স্বামী মফিজুরের বিরুদ্ধে এ মামলায় চার্জ গঠন করা হয়।

এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২ সহযোগীসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এরপর তাদের নিয়ে অভিযানে রাজধানীর একটি হোটেলে বুকিং দেওয়া বিলাসবহুল প্রেসিডেনশিয়াল স্যুট রুম ও ইন্দিরা রোডের ফ্ল্যাট থেকে বিদেশি একটি বিদেশি পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড গুলি, ৫ বোতল বিদেশি মদ, ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, ৫টি পাসপোর্ট, ৩টি চেক, বেশ কিছু বিদেশি মুদ্রা ও বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি এটিএম কার্ড উদ্ধর করে র‌্যাব।

এ ঘটনায় অস্ত্র, মাদক ও জাল টাকা রাখার অপরাধে পৃথক ৩ টি মামলা করা হয়।

তাদের ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে পাপিয়া ও তার স্বামী সুমনের প্রত্যেক মামলায় ৫ দিন করে ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন আদালত। এছাড়া তাদের সহযোগী সাব্বির খন্দকার ও শেখ তাইয়েবা নুরের ৫ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

পাঠকের মতামত: