কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১

মরে গিয়েও বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি পেল সেই ‘রানি’

মরে গিয়েও নানা জল্পনা-কল্পনা ও অনিশ্চয়তার ধূম্রজাল ছেদ করে আশুলিয়ার চারিগ্রাম এলাকায় শিকড় অ্যাগ্রো লিমিটেডের বামন আকৃতির গরু ‘রানি’ গড়েছে গিনেস বিশ্ব রেকর্ড। ফলে গিনেস বুকে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি পেল বামন গরু ‘রানি’। গত কোরবানির ঈদে আলোচনায় আসে গরুটি। পরে দেশ ছাড়িয়ে এর খবর প্রকাশ পায় বিশ্ব মিডিয়ায়। কিন্তু হঠাৎ খবর আসে রানির মৃত্যুর। এ নিয়েও চলে আলোচনা। অবশেষে খর্বাকৃতির এই গরুকে স্বীকৃতি দিলো গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেন সাভারের আশুলিয়ায় চারিগ্রাম এলাকার শেকড় এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. সেলিম। এই খামারেই বেড়ে ওঠে গরুটি।

এর আগে, সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকডস কর্তৃপক্ষ তাকে ই-মেইলের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলে জানান তিনি।

সেলিম বলেন, তাদের (গিনেস বুক কর্তৃপক্ষ) কাছে আমরা রানির পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাঠিয়েছিলাম। ওরা মূলত দেখেছে, আমরা হরমোন জাতীয় ইনজেকশন পুশ করে রানিকে বামন করেছিলাম কি না? কিন্তু প্রতিবেদনে এ ধরনের কোনো কিছুই তারা পায়নি। চারদিন আগে ওরা রানিকে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর স্বীকৃতি দিয়েছে। কিন্তু তাদের প্রসেসের কারণে বিলম্বে আমাদের গতকাল ই-মেইল করেছে।

তিনি আরও বলেন, রানি আমাদের সবার অনেক আদরের ছিলো। প্রাণী হলেও রানিকে আমরা পরিবারের একজন করে নিয়েছিলাম। কিন্তু গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে যখন রানির নাম উঠতে আর কিছু দিন বাকি, তখন আমরা তাকে হারিয়েছি। রানির মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারিনি আমরা। তবে অবশেষে গিনেস বুক কর্তৃপক্ষ তাদের প্রসিডিউর অনুযায়ীই রানিকে বিশ্বের সবচাইতে ছোট গরুর স্বীকৃতি দিয়েছেন।

পাঠকের মতামত: