কক্সবাজার, রোববার, ২০ জুন ২০২১

উখিয়ায় রিক এর অর্থায়নে “খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়ন” প্রকল্পের ১৩৪৯৫ পরিবারের মাঝে অতিরিক্ত পুষ্টি সমৃদ্ধ বিস্কুট বিতরণ

জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি) এর সহায়তায় রিক কতৃক উখিয়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে “খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়ন” প্রকল্পের মোট ১৩৪৯৫ উপকারভোগীদের মাঝে অতিরিক্ত পুষ্টি সমৃদ্ধ বিস্কুট বিতরণ।

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মহামারী আকার ধারণ করায় মৃত্যুর পাশাপাশি পুরো মানবজাতি আজ ঘরবন্দী হয়ে পড়েছে।
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশের জনগণের নিরাপত্তার স্বার্থে মানুষকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি ঘরে অবস্থান করতে বলেছেন। এমতাবস্থায়, অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবিকা নির্বাহ কঠিন হয়ে পড়েছে। সরকারের বিভিন্ন ত্রাণ কার্যক্রমের পাশাপাশি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোও অসহায় জনগোষ্ঠীর খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তাদের
পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

গত ১৩-২২ এপ্রিল, ২০২০ তারিখ পর্যন্ত জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডব্লিউএফপি) -এর সহায়তায় রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) উখিয়া উপজেলার খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়ন (ইএফএসএন) প্রকল্পের আওতাধীন স্থানীয় লক্ষিত জনগোষ্ঠীকে উপজেলাা প্রশাসনের ঐকান্তিক সহযোগিতায় ১৩,৪৯৫ টি পরিবারকে ১ কাটুন (৫ কেজি) অতিরিক্ত পুষ্টি সমৃদ্ধ বিস্কুট বিতরণ করে।

এ বিশেষ কার্যক্রম প্রত্যেকটি হতদরিদ্র পরিবারের কিছু দিনের পুষ্টি চাহিদা পূরণে সহায়ক হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশা করেন। এই বিতরণ কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ সমূেেহের চেয়ারম্যানবৃন্দের পাশাপাশি, উখিয়া উপজেলা পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যান মহোদয়, ভাইস-চেয়ারম্যানবৃন্দ সবার্ত্মক সহযোগিতা প্রদান করেন। সর্বোপরি উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মো: নিকারুজ্জামান-এর সার্বিক তদারকিতে বিতরণ কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সকল প্রকার স্বাস্থ্য বিধি সুরক্ষা নিশ্চিত
করা সাপেক্ষে এই বিতহরণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়। বিতরণ কেন্দ্রে হাত ধোওয়া ও হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের ব্যবস্থা রাখা সহ যতদূর সম্ভব কম সংখ্যক লোক উপস্থিত করার লক্ষ্যে এক এক দলের জন্য এক এক সময়ে উপস্থিতি নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। সাক্ষর বা টিপসহির বদলে টিক চিহ্ন দিয়ে বিতরণ করা হয়।

পাঠকের মতামত: