কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস আজ

আজ ১১ অক্টোবর, আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস। এ বছর কন্যাশিশু দিবসের প্রতিপাদ্য হচ্ছে- ‘মেয়েদের অধিকারে বিনিয়োগ করুন: আমাদের নেতৃত্ব, আমাদের কল্যাণ’।

২০১২ সালের ১১ অক্টোবর জাতিসংঘ প্রথম আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবস পালন করে। এই বছর আন্তর্জাতিক মেয়ে দিবসের একাদশ বার্ষিকী উদ্‌যাপন করা হচ্ছে। মেয়েদের প্রতি দিনের চ্যালেঞ্জগুলি মোকাবিলা করার এবং মেয়েদের ক্ষমতায়ন এবং তাদের অধিকারের পরিপূর্ণতা দেওয়ার লক্ষ্যেই এই দিনটি পালন করা হয়।

প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল নামের বেসরকারি অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতাতে একটি প্রকল্প রূপে আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবসের জন্ম হয়েছিল। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের ‘কারণ আমি একজন মেয়ে’নামক আন্দোলনের ফলশ্রুতিতে এই দিবসর ধারণা জাগ্রত হয়েছিল। এই আন্দোলনের মূল কার্যসূচি হল বিশ্বজুড়ে কন্যার পরিপুষ্টি সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা।

সংস্থাটির কানাডার কর্মচারীরা সবাই এই আন্দোলনকে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠা করতে কানাডা সরকারের সহায়তা নেয়। পরে জাতিসংঘের সাধারণ সভার মধ্যে কানাডায় আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস উদ্‌যাপনের প্রস্তাব শুরু হয়। ২০১১ সালের ১৯ ডিসেম্বর তারিখে এই প্রস্তাব রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় গৃহীত হয় ও ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর তারিখে প্রথম আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস পালন করা হয়।

বিশ্বজুড়ে মেয়েরা যে সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হন, যেমন শিক্ষা, পুষ্টি, জোরপূর্বক বাল্যবিবাহ, আইনি অধিকার এবং চিকিৎসার অধিকার সম্পর্কে সচেতনতা না থাকা— এই জাতীয় সমস্যা সম্পর্কে সকলকে সচেতন করে। প্রতি বছর দিনটির থিম পরিবর্তিত হয়।

জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘এখন সময় এসে গিয়েছে, মেয়েদের কাজ, তাদের অধিকার সম্পর্কে আমাদের সকলের দায়বদ্ধ হতে হবে। তাদের নেতৃত্বে বিশ্বাস রাখতে হবে।’ এটিই সব মিলিয়ে এই দিনটির গুরুত্ব।

পাঠকের মতামত: