কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

এ্যানিকে সন্ত্রাসী কায়দায় তাকে আটক করা হয়েছে : মির্জা ফখরুল

এ্যানিকে ডাকাতের মতো সন্ত্রাসী কায়দায় গ্রেপ্তার করায় সরকার প্রমাণ করেছে, তারা একতরফা নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে। এমনই অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (১১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ তোলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তার (এ্যানির) কোনো দোষ থাকলে তাকে থানায় যেতে বলতে পারত। কিন্তু যেভাবে ডাকাতের মতো হামলা করে, সেভাবে সন্ত্রাসী কায়দায় তাকে আটক করা হয়েছে।’

সরকার পতনের চলমান একদফা আন্দোলনের সর্বশেষ পরিস্থিতি, পরবর্তী করণীয় ও খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে এই সংবাদ সম্মেলন আহ্বান করা হয়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমি খুব ক্ষোভের সঙ্গে জানাতে চাই, গত মধ্যরাত দুইটায় আমাদের প্রচার সম্পাদক ও মিডিয়া সেলের সদস্য সচিব শহীদ উদ্দীন এ্যানিকে যে বর্বর বা ডাকাতির পদ্ধতিতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাতে প্রমাণ করে যে এই সরকার একতরফা নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে এ্যানিকে মধ্যরাতে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান মির্জা ফখরুল। এ সময় জামিন পাওয়া বিএনপি নেতাদের জেল গেট থেকে আটক করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার তাকে হত্যা করতে চায়। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য যেমন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে তার ক্যান্টনমেন্টের বাসভবন থেকে উৎখাত করা হয়েছিল, ঠিক একইভাবে বিনা অপরাধে ফরমায়েসি রায়ে তাকে পরিত্যক্ত কারাগারে পাঠিয়ে বিনা চিকিৎসা এবং ইচ্ছাকৃত ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর পথে ঠেলে দেওয়ার অপচেষ্টা চালানো হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিনা ভোটে জোর করে ক্ষমতা দখলকারী বর্তমান সরকার যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জীবিত দেখতে চায় না তার অনেক প্রমাণের অন্যতম হলো প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক দেশনেত্রীকে টুস করে পদ্মার পানিতে ফেলে দেয়ার' ইচ্ছা প্রকাশ এবং সম্প্রতি ‘৮০ বছর বয়স হয়েছে, চলেই তো যাবে, এত কান্না কাটির কী আছে?’ এমন কথা বলা। কোন দেশের সরকার প্রধান তো দূরের কথা কোন সভ্য, মানবিক, সুস্থ সাধারণ নাগরিক প্রতিপক্ষ সম্পর্কে এমন সন্ত্রাসীসুলভ কথা বলতে পারে না। যে সরকার দেশনেত্রীর মৃত্যু চায় সেই সরকার তাঁর সুচিৎসায় অন্যায় ভাবে বাধা দেবে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু দেশবাসীর কাছে সরকারের এই মনোভাব ও আচরণ গ্রহণযোগ্য নয়।

পাঠকের মতামত: