কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

কক্সবাজারে অস্ত্র ও গুলিসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

কক্সবাজার শহরকে নিরাপদ রাখতে অপরাধ নির্মূল ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং ছিনতাইরোধে পুলিশ বিশেষ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। তার ধারাবাহিকতায় কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের পৃথক কয়েকটি টিম নিয়মিত অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন। গত শনিবার মধ্যরাতে কক্সবাজারে সদরের কাছাকাছি এলাকা ভারুয়াখালীতে আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলিসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী মোহাম্মদ বাবুলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়া গত ১২ দিনে পুলিশ ৫ জন ছিনতাইকারী, ৩ অস্ত্র ব্যবসায়ী ১৪ জন ডাকাত, ৩ জন মানবপাচারকারি, ৩৫ রোহিঙ্গা উদ্ধার ও ইয়াবা, মদসহ ৪ জনকে গ্রেফতার। এই ঘটনায় পুলিশ ৬টি অস্ত্র ও ১১৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেন।

রোববার দুপুরে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শনিবার মধ্যরাতে কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ভারুয়াখালী বাজারস্থ জনৈক পুতুইন্যা খলিফার গ্রিল ওয়ার্কশপের দোকানে এ অভিযান চালানো হয়।

গ্রেপ্তার মোহাম্মদ বাবুল (৪৪) কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালী বাজার এলাকার বাসিন্দা।

তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দেশিয় তৈরী ৩ টি বন্দুক ও ৯৮ টি রাইফেলের গুলি।

রোববার দুপুরে কক্সবাজার সদর থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মিজানুর রহমান জানান, মোহাম্মদ বাবুল একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও অস্ত্র ব্যবসায়ি। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, অপহরণ, হত্যা, অস্ত্র ও জবরদখলসহ নানা অভিযোগে কক্সবাজার সদর থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এসব মামলায় সে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিল।

 

সংবাদ সম্মেলনে মিজানুর রহমান বলেন, কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের লিংকরোড এলাকায় পুলিশের একটি দল অবস্থান করছিল। এসময় ভারুয়াখালী বাজার এলাকায় অপরাধ সংঘটনের উদ্দেশ্যে কতিপয় অস্ত্রধারী লোকজন অবস্থানের খবর পায় পুলিশ। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে উপস্থিতি টের পেয়ে জনৈক পুতুইন্যার গ্রিল ওয়ার্কশপের ভিতর থেকে ৩ জন সন্দেহজনক লোক দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা চালায়। এসময় ধাওয়া দিয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হলেও অপর দুইজন পালিয়ে যায়। পরে গ্রেপ্তার মোহাম্মদ বাবুলের সঙ্গে থাকা একটি ব্যাগের ভিতর পাওয়া যায় দেশিয় তৈরী তিনটি কাটা বন্দুক ও ৯৮ টি রাইফেলের গুলি। গ্রেপ্তার ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে থানায় মামলা করে আদালতে পাঠানো হয়েছে হচ্ছে বলে জানান মো. মিজানুর রহমান।

 

কক্সবাজার সদর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে কক্সবাজার শহরের চিহ্নিত ছিনতাইকারী সোহেল ওরফে হাতি সোহেলকে অস্ত্রসহ আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে ১৪ টি মামলা রয়েছে।

 

পুলিশ কর্মকর্তা রফিক আরও জানান, কক্সবাজার শহরে আটককৃত হাতি সোহেলে কয়েটি গ্রুপ রয়েছ। তার দেয়ার তথ্য মতে, তাদের ধরতে পুলিশ মাঠে কাজ করছে। তিনি অপরাধ নির্মূলে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

পাঠকের মতামত: