কক্সবাজার, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

তাপপ্রবাহের তীব্রতা কমতে শুরু করছে

সারাদেশে তীব্র তাপপ্রবাহে দুর্বিসহ উঠেছে জনজীবন। রাজশাহী ও চুয়াডাঙ্গায় তাপপ্রবাহে হাঁসফাঁস অবস্থা। রাজধানী ঢাকাতেও গত শনিবার ১৯৬৫ সালের পর সবচেয়ে বেশি গরম পড়েছে। তবে দেশের বিভিন্ন স্থানে তাপপ্রবাহের তীব্রতা কমতে শুরু করেছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, ঢাকার তাপমাত্রা আরও কমেছে। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও কমে অতি তীব্র থেকে তীব্রতে নেমে এসেছে।

আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক জানিয়েছেন, মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে রাজশাহীতে ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা আগের দিন ঈশ্বরদীতে ওঠেছিল ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। ঢাকার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা আগের দিনের চেয়ে ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ১৯ এপ্রিল থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ময়মরনসিংহ, সিলেট অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।

আবহাওয়াবিদ তরিফুল নেওয়াজ কবির জানিয়েছেন, ২০ এপ্রিলের পর তাপপ্রবাহ আর কমবে। তবে একেবারে চলে তা নয়। হয়তো মৃদু তাপপ্রবাহ থাকবে। সেসঙ্গে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়বে।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক জানিয়েছেন, ২১, ২২ এপ্রিলের দিকে দেশের বেশিভাগ স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। ২৩ এপ্রিলে থেকে দেশেই বৃষ্টি এবং কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে। তবে সেটা একটানা নয়। গত চার এপ্রিলে থেকে দেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তাপপ্রবাহ ক্রমান্বয়ে বাড়তে শুরু করে। ১৭ এপ্রিল এসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে।

পাঠকের মতামত: