কক্সবাজার, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়ল মিয়ানমারের ৩ সেনা

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষের মধ্যে আবারো মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ৩ জন সদস্য পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। খবর পেয়ে বিজিবি সদস্যরা গিয়ে তাদের সঙ্গে থাকা অস্ত্র জমা নেয়ার পর তাদের হেফাজতে নেয়া হয়। এদের বিজিবির নাইক্ষ্যংছড়ি ব্যাটালিয়নে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শনিবার (৩০ মার্চ) ভোরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের তুমব্রু কোনাপাড়া সীমান্ত দিয়ে এই ৩ সদস্য পালিয়ে আসে। তবে আমাদের হাতে আসা ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় দুইজন জান্তা সদস্যের পাশাপাশি একজন বিজিপি সদস্যও সেখানে দেখা যায়।

ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য শফিকুল ইসলাম টিটিএন-কে বলেন, আমি স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়েছি ৩ জন সেনা সদস্য অনুপ্রবেশ করেছে। তাদেরকে বিজিবি আশ্রয়ে নিয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ জাকারিয়া টিটিএন-কে জানান, ৩ জন সেনা সদস্য অনুপ্রবেশ করার বিষয়টি সঠিক। তারা বিজিবির কাছে আশ্রয় নিয়েছে।

এর আগে ১১ মার্চ নাইক্ষ্যংছড়ির জামছড়ি সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে এসেছিল ১৭৯ জন মিয়ানমার বর্ডার পুলিশ -বিজিপি সদস্যরা। এরাও নাইক্ষ্যংছড়ি বিজিবি ব্যাটালিয়নে রয়েছে। তাদের মিয়ানমারের ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

তারও আগে গত ২ ফেব্রুয়ারি রাত থেকে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সীমান্তের ওপারে আরাকান আর্মির সঙ্গে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির সংঘর্ষ শুরু হয়। এর জের ধরে ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন বিজিপি সহ ৩৩০ জন। যার মধ্যে ৩০২ জন বিজিপি সদস্য, ৪ জন বিজিপি পরিবারের সদস্য, ২ জন সেনা সদস্য, ১৮ জন ইমিগ্রেশন সদস্য ও ৪ জন বেসামরিক নাগরিক ছিলেন। এদের ১৫ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে ফেরত পাঠানো হয়।

পাঠকের মতামত: