কক্সবাজার, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে সোহেল রহমানের নতুন চলচ্চিত্র ‘অটোপসি অফ এ জেনোসাইড’

রোহিঙ্গা গণহত্যার পাঁচ বছর পর বাংলাদেশি-পর্তুগিজ চলচ্চিত্র নির্মাতা সোহেল রহমান নির্মাণ করছেন তার নতুন চলচ্চিত্র ‘অটোপসি অফ এ জেনোসাইড’। পর্তুগাল থেকে ফিরে উখিয়ার শরণার্থী শিবিরে ইতোমধ্যে সিনেমাটির চিত্রায়ণ শুরু করেছেন তিনি।

এর আগে ২০১৭ সালের রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে সোহেল নির্মাণ করেন দ্য আইসক্রিম সেলারস।

গণহত্যা থেকে পালিয়ে আসা ছোট দুই রোহিঙ্গা ভাইবোনের জীবন সংগ্রামের মানবিক গল্প চিত্রিত হয় দ্য আইসক্রিম সেলারসে। বিশ্বব্যাপী বহু চলচ্চিত্র উৎসব এবং নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে সে ছবির সফল প্রদর্শনী হয়। কানাডার মন্ট্রিলে সাউথ এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এবং যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে তাসভীর সাউথ এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে বেস্ট ডকুমেন্টারি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডও অর্জন করে ছবিটি।

বর্তমানে নির্মাণাধীন ‘অটোপসি অফ এ জেনোসাইড’ ছবিটি রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নির্মম গণহত্যার একটি গভীর বিশ্লেষণ, তাদের ট্র্যাজেডি, আশা এবং বেদনার গল্প। রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের ভবিষ্যৎ এবং মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী কর্তৃক সংঘটিত গণহত্যা ও রক্তপাতের ওপর আলোকপাত করবে এ ছবি।

অনেক চেষ্টার পর সোহেল ক্যাম্পে ছোট রোহিঙ্গা ভাইবোন আয়াস ও আসিয়াকে খুঁজে পান। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে অনেক কিছুই পরিবর্তিত হয়েছে। কিন্তু রোহিঙ্গা মানুষের সংগ্রাম ও দেশে ফেরার প্রত্যাশা অব্যাহত রয়েছে। ‘অটোপসি অফ এ জেনোসাইড’ নির্যাতিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর গণহত্যার গল্প তুলে ধরার পাশাপাশি চলচ্চিত্রটি বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন তুলে ধরবে।

রোহিঙ্গারা কি শরণার্থী শিবিরে চিরতরে বসবাস করতে থাকবে নাকি তারা ফিরবে কোনো দিন তাদের আপন জন্মভূমিতে?

পাঠকের মতামত: