কক্সবাজার, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০

টেকনাফে এক মাসে ৪ লাখ ৭৪ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

টেকনাফ সীমান্তে অক্টোবর মাসে বিজিবি ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে ৪ লাখ ৭৪ হাজার ২৬৯ টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে বিজিবি উদ্ধার করেছে ৪ লাখ ১৭ হাজার ৬৪৯ টি। আর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে উদ্ধার হয়েছে ৫৬ হাজার ৬৭২ টি।

রোববার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট ২ প্রতিষ্ঠান।

টেকনাফ ২ বর্ডার গার্ড বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ ফয়সল হাসান খান জানান, অক্টোবর মাসে সীমান্ত ও চেকপোষ্টে বিজিবির জওয়ানরা অভিযান চালিয়ে ৪ লাখ ১৭ হাজার ৬৪৯ টি ইয়াবা জব্দ করা হয়। ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ১২ কোটি ৫২ লাখ ৯৪ হাজার ৭ শ’ টাকা। এই সব ইয়াবা জব্দের ঘটনায় ৩৩ মামলায় ২৭জনকে আটক করা হয়। বিজিবি সীমান্ত ও চেকপোস্ট থেকে ৪৮ হাজার ৯শ’২৫ টাকার মূল্য মানের মিয়ানমারের ১২৫ ক্যান বিয়ার ও ৫ কেজি ৫০ গ্রাম গাঁজা জব্দ করা হয়। এসব জব্দের ঘটনায় তিনটি মামলায় দুইজনকে আটক করা হয়।এছাড়া সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ১ কোটি ১৯ লাখ ৮৪ হাজার ৭৩ টাকা মূল্যের চোরাই পন্য জব্দ করা হয়েছে। নয়টি মামলায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, বিজিবির জওয়ানরা সীমান্তে অভিযান চালিয়ে দেশী তৈরি ছয়টি বন্দুক, ১০ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৪ রাউন্ড রাইফেলস এ্যামুনেশন, ৪ রাউন্ড এলএমজি এ্যামুনেশন, ৪ রাউন্ড রকেট প্যারাসুট প্লেয়ার ও ৯ রাউন্ড কার্তুজের খালি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। একটি মামলায় চারজনকে আটক করা হয়। তবে সীমান্তে যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিজিবি সর্তকতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।

টেকনাফ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের বিশেষ জোনের ইনচার্জ দেওয়ান মোঃ জিল্লুর রহমান জানান, টেকনাফ জোনের ডিএনসির সদস্যরা অক্টোবর মাসে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৫৬ হাজার ৬শ’৭২ টি ইয়াবা, ২০ গ্রাম গাঁজা, ১০টি ব্যবহৃত মোবাইল সেট ও নগদ ১ লাখ ৭৯ হাজার ৭শ’ টাকা উদ্ধার করা হয়। এই সব উদ্ধারের ঘটনায় ৩২ মামলায় ৪২ জনকে আটক করা হয়। উদ্ধারকৃত আলামতের আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৭১ লাখ ৮২ হাজার ৩ শ’ টাকা। তিনি আরো জানান,ডিএনসির নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

পাঠকের মতামত: